পলাশবাড়ীতে পারিবারিক কলহের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে থানায় মিথ্যা মামলা

0 ৩৯৯

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে পারিবারিক তুচ্ছ ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করে মিথ্যা মামলা দায়ের করার অভিযোগ পাওয়া গেছে হালিম নামে এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে ।ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সদরের পৌর এলাকার গৃধারীপুর গ্রামে।অভিযোগে জানাযায়,উপজেলার নুপুর গ্রামের খোকা মিয়ার ছেলে আশরাফুল ও সুলতানপুর বাড়াইপাড়া গ্রামের মৃত খাদেম হোসেনের ছেলে শফি মিয়া ব্যবসায়ীক কারনে গ্রাম ৫ কিলোমিটার দুরে সদরের গৃধারীপুর গ্রামের মবারক হোসেনের ছেলে খালেদ হোসেন মোশারফের বাড়ী ভাড়া নিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে দির্ঘদিন যাবৎ শান্তি পুর্নভাবে বসবাস করিয়া আসিতেছিল।এরইধারাবাহিকতায় পাশ্ববর্তী প্রতিবেশি গৃধারীপুর গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে হালিম মিয়া উক্ত বাসা তার নিকট আতœীয় জন্য ভারা চাইলে বাড়ীর মালিক ভারাটিয়া বের করে দিয়ে বাসা ভারা দিয়ে অস্বীকৃতি জানায়।এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হালিম ও তার লোকজন ২০ মার্চ সন্ধায় বিবাদী আশরাফুল ও শফির উপর হামলা চালায় বিএনপি পন্থী এই আইনজীবি হালিম। পরদিন ২১ মার্চ এই আসনের উপনির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য আসামীদের হুমকি ধামকি প্রদান করেন।কিন্তু দুঃখ জনক হলে ও সত্য তার নিষেধ অমান্যকরে শফি ও আশরাফুল ২১ মার্চ ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার পথিমধ্যে হালিমের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন লোক অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া শফি ও আশরাফুলের উপর হামলা চালানোর উদ্দেশ্যে ধাওয়া করে এসময় উভয় পক্ষের মধ্য ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।খবরপেয়ে পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা উভয় পক্ষকে ধাওয়া দিলে পাকা রাস্তায় পরে গিয়ে হালিম গুরুতর আহত হয়।পরে তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।এঘটনার ১২ দিন পর হালিম বাদী হয়ে জুয়া ও ক্যাসিনোর চালানোর অভিযোগ এনে আশরাফুল ও শফি মিয়াকে আসামী করে পলাশবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করে যার মামলা নং ০৩।বাড়ীর মালিক খালেদ মোয়ারফ বলেন পারিবারিক তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জুয়া ক্যাসিনো ও সামাজিক কর্মকান্ড বিরোধী অপরাধের অভিযোগে আমার ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।যা সম্পুর্ন মিথ্যা বানোয়ার ও ভিত্তিহীন।পলাশবাড়ী উপজেলা শহরের প্রানকেন্দ্রে আমার বাসা, আমরা ধর্ম ভীরু মানুষ নিয়মিত নামাজ আদায় করি!জুয়া ক্যাসিনো অসামাজিক কোন কর্মকান্ড আমাদের বাসায় হওয়ার কোন প্রশ্নই ওঠে না।প্রতিবেশী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মামুন আর রশিদ সুমন বলেন এই এলাকায় অসামাজিক কোন কর্মকান্ড হয় না।উল্লেখিত ঘটনাটি পারিবারিক কলহের জের ধরে হয়েছে।

 

চাচী ওঠেন আমি পুলিশের লোক এসপি স্যার আপনার জন্য সাহায্য পাঠিয়েছেন!

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে জনসচেতনতার পাশাপাশি মানবতার কল্যানে কাজ করছে গাইবান্ধা জেলা পুলিশ। এরইধারাবাহিকতায় শনিবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলামের নির্দেশে জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সি-সার্কেল অফিসের দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে পলাশবাড়ী উপজেলার উদয়সাগর গ্রামের বিভিন্ন দুস্থ অসহায় পরিবারের সদস্যদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে ত্রান সামগ্রী বিতরন করেন।এসময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য সুবিধাভোগীদের ঘরের দরজায় গিয়ে বলেন চাচী ওঠেন আমি পুলিশের লোক এসপি স্যার আপনার জন্য ত্রান সহায়তা পাঠিয়েছেন।করোনা পরিস্থিতির দুর্যোগ মোকাবেলায় এভাবেই গাইবান্ধা জেলা পুলিশ দুস্থ অসহায় গরীব মানুষের মাঝে ত্রান বিতরন অব্যাহত রেখেছেন।এদিকে জেলা পুলিশের ত্রান পেয়ে সরকারি সুবিধা বঞ্চিত এসব পরিবার পুলিশের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.