পাইকগাছা থানা পুলিশ অপহরণ মামলার ভিকটিম হাবিবুর উদ্ধার- ওসির প্রেসব্রিফিং

0 110

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: নিখোঁজের দেড় বছর পর খুলনার পাইকগাছা থানা পুলিশ চাপাই নবাবগঞ্জ থেকে আপহরণ মামলার ভিকটিম হাবিবুর গাজী (২০) কে উদ্ধার করেছেন। এ ঘটনায় ওসি প্রেস ব্রিফিং করেছেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই এমএম মুনতাসির মাহমুদ রবিবার সকালে একটি মানবিক স্বেচ্ছাসেবক সহয়তা টিমের সহয়তায় নাচোল থানার গোলাবাড়ী রেল স্টশনের কাছ থেকে হাবিবুরকে উদ্ধার করেন। সে উপজেলার কপিলমুনি ইউপি’র রেজাকপুর গ্রামের অফুর গাজীর ছোট ছেলে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

 

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সুত্র জানায়, প্রায় দু ‘বছর পুর্বে রেজাকপুরের অফুর গাজীর ছোট ছেলে হাবিবুর তার ফুফাতো ভাই ইটভাটা সর্দার সাতক্ষিরা জেলার তালা থানার তেঁতুলতলা গ্রামের শাওন ও তার সহকর্মী মফিজুরের সাথে না’গঞ্জের শিমুলিয়া ভাইবন্ধু নামে একটি ইট ভাটায় কাজ করতে যায়। এখানে থাকারস্থায় হাবিব এক সময় কাউকে কিছু না বলে নিখোঁজ হলে ভাটা সর্দার শাওন পড়েন বিপদে। এ ঘটনায় ১২-৪- ২০ তারিখে না’গঞ্জের রুপগঞ্জ থানায় একটি জিডি হয়,যার নং-৩৬০।

 

এদিকে দীর্ঘ সময় খোজা-খুঁজি করার পর সন্ধান না পেয়ে হাবিবুরের বড় ভাই ইব্রাহীম গাজী গত ৪-৪-২০ ও পিতা অফুর গাজী ১৪-৪-২০ তারিখে শাওন ও মফিজুরের বিরুদ্ধে পাইকগাছা থানায় পৃথক জিডি করলে পুলিশ হাবিবুরের ফাইল ছবি দিয়ে দেশের সব থানায় বেতার বার্তা পাঠায়। এর পরেও হাবিবুরের সন্ধান না পাওয়ায় একই বছরের ১- ১২-২০ তারিখে অফুর গাজী বাদী হয়ে শাওন ও মফিজুরের বিরুদ্ধে পাইকগাছার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অপহরণ মামলা করলে বিজ্ঞ আদালত মামলাটি এফ,আই,আর, করার জন্য থানার ওসিকে দির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে পুলিশ মামলাটি রেকর্ডভুক্ত করেন, যার নং-১।

 

 

এ মামলার পর পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর থানার একটি ইট ভাটায় অভিযান চালিয়ে শাওন ও মফিজুলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরন করেন। এদিকে সোমবার বেলা ১১ টায় ওসি মোঃ এজাজ শফী ভিকটিম উদ্ধারের বিষয়ে প্রেসব্রিফিং’র বিস্তারিত তথ্য দিয়ে জানান, এ মুহুর্তে হাবিবুর অনেকটা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x