পুঠিয়ায় জিআর প্রকল্পের চাউল দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ না করে আত্নসাতের অভিযোগ

0 ২৪৮

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর পুঠিয়ায় জিআর প্রকল্পের চাউল দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ না করে আত্নসাতের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার পূর্ব বারইপাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্প তালুকদার গ্রামে পুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মিলন এর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার পূর্ব বারইপাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্প তালুকদার গ্রামের ১০০ টি পরিবারের জন্য ২০২২-২৩ অর্থ বছরে জিআর প্রকল্পের (ত্রাণ কার্য) ৩ টন চাউল বরাদ্দ হয়। বরাদ্দকৃত চাউল পুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বর মিলন উত্তোলন করেন।

সেই চাউল ১০০ টি পরিবার প্রতিটি পরিবার ৩০ কেজি করে পাওয়ার কথা। সেই চাউল হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিতরণ না করে ভূয়া মাষ্টারোল জমা দিয়ে চাউল উত্তোলন করে বিক্রয় করে দেওয়া হয়েছে। চাউল আত্নসাতের বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

আশ্রয়ণ প্রকল্প তালুকদার গ্রামের বান্দিরা জানান, আমাদেরকে কেউ কোন চাউল দেইনি। তবে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাসুদুর রহমান মাসুদ রাত ১২ টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত সাদা কাগজে স্বাক্ষর করে নেন এবং ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি নেন।

চাউল ক্রেতা ডিলার জানান, সেই ৩ টন চাউলের দাম ১ লাখ ৮ হাজার টাকা দিয়েছি।

পুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মিলন জানান, ৩ টন চাউল বিক্রির টাকা দিয়ে গত কুরমানী ঈদে ৮৮ হাজার টাকা দিয়ে গরু কিনে কুরবানী দেওয়া হয়েছে। আর যে কয় টাকা বেচেছে সেটাকার বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে পারবো না।

পূর্ব বারইপাড়া তালুকদার গ্রামের সভাপতি নাসির উদ্দিন বলেন, এই চাউলের বিষয়ে আমার কিছু জানা নাই।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর দিতে অপারগতা শিক্ষার করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ কে এম নূর হোসেন নির্ঝর এর সরকারী মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি রিসিভ করেনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.