পুঠিয়া আমঘোষপাড়া সরকারী স্কুলের ভবন অনুমোদন ছাড়াই প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ভেঙ্গে নেওয়ার অভিযোগ

0 ১১৬

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর পুঠিয়া আমঘোষপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন পরিত্যক্ত ভবন সরকারী বিধিকে তোয়াক্ক না করেই অনুমোদন ছাড়াই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রমজান আলী কর্তৃক ভেঙ্গে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানায়, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়ের আমঘোষপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন পরিত্যক্ত ভবন সরকারী বিধিকে তোয়াক্ক না করেই অনুমোদন ছাড়াই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রমজান আলী কর্তৃক ভেঙ্গে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসী আরো জানান, স্কুলের প্রধান শিক্ষক রমজান আলী কাজের লোক দিয়ে গত শনিবার সকাল থেকে স্কুলের পুরাতন ভবন ভাংঙ্গা শুরু করে। সেই পুরাতন ভবনে রয়েছে ৪টি ক্লাস রুম। পরবর্তীতে এলাকাবাসীর প্রতিবাদে বর্তমানে ঘর ভাংঙ্গা কাজ বন্ধ রয়েছে। তবে বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী।

প্রধান শিক্ষক রমজান আলী জানায়, আমি সরকারী পুরাতন ভবন ভাংঙ্গিনি। তবে সেই ভবন ঝুকিপুর্ন অবস্থায় আছে। তাই সেটা ভাংঙ্গা প্রয়োজন।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি হেকমতউল্লাহ মোবাইল ফোনে ফোন করা হলে তিনি জানান, প্রধান শিক্ষক অনুমোদন ছাড়াই স্কুলের পুরাতন ভবন ভেঙ্গে নিয়ে যাচ্ছে। তবে পরিত্যক্ত ভবন ঝুকিপুর্ন হওয়ায় আমি স্কুলের সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি। অনুমোদ নিয়ে সরকারী বিধি মোতাবেক ভবনটি ভাংঙ্গার জন্য বলেছি। কিন্তু প্রধান শিক্ষক তার ইচ্ছে মত লেবার লাগিয়ে ভবন ভেঙ্গে নিয়ে চলে যাচ্ছে। তাই বিষয়টি আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে জানাবো যাতে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এ বি এম ছানোয়ার হোসেন জানান, সেই ভবন ভাংঙ্গার কোন অনুমোন নাই। খবর পেয়ে এটিও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.