প্রত্যাহার করা সেনা ক্যাম্পে পুলিশ-বিজিবি মোতায়েন করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

140

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: নিরাপত্তার স্বার্থে তিন পার্বত্য জেলায় শান্তিচুক্তির আলোকে প্রত্যাহার করা সেনা ক্যাম্পে চুক্তির আলোকে পুলিশ বা বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি বুধবার রাতে রাঙামটিতে তিন পার্বত্য জেলার বিশেষ আইন-শৃঙ্খলা সভা শেষে একথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা ও নির্বাচন কাজে নিয়োজিত লোকদের গুলি করে হত্যা করে একটা ভীতিকর পরিবেশ তৈরির প্রচেষ্টা ছিলো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর।

মন্ত্রী বলেন, আমরা বলেছি বাংলাদেশে কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর ঠাঁই হবে না। সেই আলোকে তিন পার্বত্য জেলায়ও কোনো সন্ত্রাসের জায়গা হবে না, তাদেরকে যেকোনো মূল্যে নির্মূল করা হবে। সন্ত্রাসী, জঙ্গি ও চাঁদাবাজদের এই এলাকা থেকে বিতাড়িত করা হবে। তার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তাদের প্রয়োজন মতো উপকরণ সরবরাহ করা হবে। প্রয়োজনে পুলিশ বাহিনীকে তাৎক্ষণিক বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতের জন্য হেলিকপ্টার কিনে দেয়া হবে।

রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয়ে রাত ১০টা পর্যন্ত চার ঘণ্টার এই বিশেষ সভায় আরো আলোচনা হয়েছে পার্বত্যাঞ্চলে ভারত ও মায়ানমারের যে সকল সীমান্ত রয়েছে সেখানে বিজিবিকে আরো শক্তিশালী করার বিষয়ে। এছাড়াও তিন পার্বত্য জেলা সহ সারাদেশের সীমান্ত গুলোতে পর্যায়ক্রমে সীমান্ত রোড চালু করা হবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, রাঙামাটির সাংসদ দীপংকর তালুকদার, পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, ডিজিএফআই মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাইফুল আবেদিন, বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাফিন আহমেদ, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহুল ইসলাম, পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুদত্ত চাকমা, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আব্দুল মান্নান, চট্টগ্রাম সেনবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল এসএম মতিউর রহমান, বিজিবি’র চট্টগ্রার রেঞ্জের রিজিয়ন কমান্ডার আমিনুর রহমান শিকদার, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমাসহ তিন পার্বত্য জেলার রিজিয়ন কমান্ডার, তিন পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসক, তিন পার্বত্য জেলার পুলিশ সুপার, তিন পার্বত্য জেলার বিজিবি অধিনায়ক, তিন পার্বত্য জেলার ডিজিএফআই অধিনায়ক।

x