প্রধানমন্ত্রীর হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ -সাংসদ ওমর  ফারুক চৌধুরী

0 ১০৮
তানোর প্রতিনিধি: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন মানবিক দরদী রাষ্ট্রনায়ক, আপনাদেরকে হাঁস, গরু, সার বীজ, টাকা ও সাইকেল এবং ক্রীড়া সামগ্রী  দিচ্ছেন। এর আগেও তো সরকার ছিল তারা কি দিয়েছে সেটা আপনারা মনে করে দেখেন। দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন দেখেন সেটা আপনাদেরকে নিয়েই বাস্তবায়ন করবেন ।
আপনাদেরকে কেন এসব দিচ্ছে সেটা বুঝতে হবে। কারন তার পিতা মহান স্বাধীনতার স্থপতি, ৩০ লক্ষ শহীদের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে। তার পিতা দেশ স্বাধীনের নায়ক ছিলেন। এজন্য পিতার কোলে সন্তান নিরাপদ,মায়ের কোলে ছেলে নিরাপদ, ঠিক একই ভাবে শেখ হাসিনার হাতে দেশ ও আপনারা নিরাপদ। এজন্য মানবিক দেশরত্নের সাথে থাকতে হবে। নৌকার বাহিরে যাওয়া যাবে না। আপনারা যেন একটু শান্তিতে জীবন যাপন করতে পারেন এজন্যই মন্দা স্বত্বেও বিনা মূল্যে এসব দিচ্ছেন।
সারা বিশ্বে মন্দা চলছে, এউপজেলায় ২৭০০ জন কৃষককে প্রায় ১৯ লাখ টাকার বিনা মূল্যের প্রনোদনা দেওয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার সকালের দিকে রাজশাহীর তানোরে আর্থিক অনুদান, বাই সাইকেল, ক্রীড়া সামগ্রী   কৃষি প্রনোদনা, ষাঁড় বাছুর ও হাঁস বিতরন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন তিনি। উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি দপ্তর এবং প্রাণী সম্পদ দপ্তরের আয়োজনে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিল্লাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায়   এমপি আরো বলেন, বিশেষ করে এউপজেলায় ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর বসবাস প্রচুর।
তাদের জীবন মান উন্নয়নে সরকার একের পর এক প্রনোদনা দিচ্ছেন, ভেড়া,গরু ছাগল হাঁস মুরগী ও ঘর তৈরির আসবাব পত্রসহ খাবারও দিচ্ছেন।  দেশ স্বাধীনের পর আপনাদের কথা কেউ ভাবেনি। কিন্তু দেশরত্ন আপনাদের জীবন যাপন ও ছেলে মেয়েরা শিক্ষিত হতে পারে সে দিক বিবেচনা করেই বিনামূল্যে এসব প্রনোদনা দিচ্ছেন। তিনি ভবিষৎ প্রজন্মের জন্য উন্নত দেশ গঠন করতে চান। তিনি আরো বলেন আমি দীর্ঘ ২০০৮ সাল থেকে এমপি,  মন্ত্রী  ও দলের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ভুল হতেই পারে। মানুষ মানেই মরনশীল, কার কখন কিভাবে মৃত্যু হবে কেউ বলতে পারবেন না। তাই আপনারা আমাকে ক্ষমা করবেন। কারন মৃত্যুর সময় সে সুযোগ নাও পেতে পারি।
 অনুষ্ঠিত সভায়  বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। ভাইস চেয়ারম্যান আবু বাক্কার সিদ্দিকের সঞ্চালনায় অতিথি হিসেবে ছিলেন, উপজেলা আ”লীগ সভাপতি মাইনুল ইসলাম স্বপন, ওসি কামরুজ্জামান মিয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  সোনিয়া সরদার, কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ, উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমান, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা( ভারপ্রাপ্ত) ড: সুমন মিয়া, কামারগাঁ ইউপি চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বি ফরহাদ, পাঁচন্দর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন, বাধাইড় ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, তালন্দ ইউপি চেয়ারম্যান নাজিমুদ্দিন বাবু, প্যানেল চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন, মোহাম্মাদ আলী মন্টু প্রমুখ।
মেধাবী ৪২ জন শিক্ষার্থীকে বাইসাইকেল দেওয়া হয়, এমপির ঐচ্ছিক তহবিল থেকে ৩১ জন কে নগদ টাকা বিতরন ও ক্রীড়া সামগ্রী বিতরন করা হয়। ২ হাজার ৭০০ জন কৃষককে খরিপ-২ মৌসুমে কৃষি প্রনোদনা বিতরন করা হয়। প্রতি কৃষককে ৫ কেজি বীজ, ডিএপি ১০ কেজি ও এমওপি ১০ কেজি।
প্রাণী সম্পদ দপ্তর থেকে ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর ৭০ টি পরিবারের মাঝে ষাঁড় বাছুর,গৃহ নির্মান উপকরন ও খাবার এবং ১৬৬ টি পরিবারের মাঝে পরিবার প্রতি ২০ টি করে হাঁস, ঘর ও খাবার বিতরন করা হয়। এসময় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী, গণ মাধ্যম কর্মী ও দলীয় নেতাকর্মী এবং উপকার ভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.