প্রধান বিচারপতির রায়ে ষড়যন্ত্রের রাজনীতি উৎসাহিত হয়েছে-ইনু

0 824

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম : প্রধান বিচারপতির ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে সংসদকে খাটো করায় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা খাটো হয়েছে এবং ষড়যন্ত্রের রাজনীতি উৎসাহিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
মঙ্গলবার বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে (পিআইবি) ‘অনলাইন সার্টিফিকেট কোর্স অন জার্নালিজম’ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার রায় নিয়ে কোনও রাজনীতি করছে না। বিএনপি এই রায় নিয়ে রাজনীতি করছে। তাই বলব বিচারপতিগণ আপনারা বিচার করবেন। কিন্তু বিএনপির দাবার গুটি হবে না।’
তিনি বলেন, ‘বিচারপতিরা সংবিধানের ব্যাখ্যা দিবেন কিন্তু জনগণের অভিভাবক সাজার চেষ্টা করবেন না। জনগণই দেশের অভিভাবক। দেশের মালিক, আমার মালিক। আপনি বিচারপতি আপনারও মালিক। সুতরাং জনগণের অভিভাবক হওয়ার চেষ্টা করা মঙ্গলজনক নয়।’
হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘বিচার বিভাগ ও গণমাধ্যম দেশের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, যার বস্তুনিষ্ঠতা বজায় রাখা উচিত। ঠিক গণমাধ্যমের মতো বিচার বিভাগের পবিত্রতা রক্ষা করতে হবে। সেখানে আমি বলব বিচারপতিগণ তারা বিচারক হবেন কিন্তু রাজনৈতিক বিচারক হবেন না। আমি বিচারপতি চাই কিন্তু রাজনৈতিক বিচারক চাই না।’
তিনি বলেন, ‘ঠিক তেমনি আমি স্বাধীন আদালত চাই কিন্তু আদালত রাজনীতির মঞ্চ হবে না। এটা বজায় রাখতে হবে। আদালত বিচার কার্য করবেন কিন্তু রাজনীতিতে নাক গলাবেন না। বিচারপতিরা ইতিহাস পাঠ করবেন কিন্তু বিচারপতিগণ ইতিহাস বিকৃত করবেন না। বিচারপতিদের আদালতকে একটা নৈতিকার মানদণ্ডে নিয়ে যেতে হবে।’
গণমাধ্যম কর্মীদের খুব শক্তভাবে গণতন্ত্রের পক্ষ নেয়ার আহ্বান জনিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গণতন্ত্রের জন্য অটুট থাকবেন কিন্তু রাজনীতির দাবার গুটি হবেন না। গণমাধ্যম কর্মীরা নিরপক্ষেতার নামে রাজাকার ও মুক্তিযোদ্ধাদের এক পাল্লায় মাপবেন না। অথবা নিরপক্ষেতার নামে রাজাকার ও মুক্তিযোদ্ধাদের থেকে সমদূরত্ব নীতি  অনুসরণ করবেন না। আপনারা অবশ্যই গণতন্ত্রের পক্ষ নিবেন।’
পিআইবির মহাপরিচালক মো. শাহ আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য সচিব মরতুজা আহমদ, ঢাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিজুর রহমান প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.