বগুড়ার শেরপুরে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার

0 ৮০

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়া শেরপুরে মাদকে সেবককে কেন্দ্র করে গভীর রাতে লিটন মন্ডল (৩২) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) গভীর রাতে উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের ঝাঁজর গ্রামে ওই যুবকের নিজ বাড়ীতেই এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পরদিন বলে ১১টার দিকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে শেরপুর থানা পুলিশ।

লিটন মন্ডল ওই গ্রামের মৃত জহুরুল ইসলাম ওরফে খোকা মন্ডলের ছোট ছেলে। নিহত লিটনের মাথার ডান পাশে, গালে এবং গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এবং তার রক্তে বিছানা বালিশ ভিজে অবস্থায় ছিল বলে পুলিশ জানায়।

এ ঘটনায় খবর পেয়ে পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(শেরপুর সার্কেল) সজীব শাহরিন, শেরপুর থানার ওসি বাবু কুমার সাহা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহত লিটনের মামা সাহেব আলী ও চাচা মোস্তাফিজার রহমান বলেন, লিটন পার্শ্ববর্তী ধুনট উপজেলার নলডাঙ্গা গ্রামে চায়না বেগম নামের এক মেয়েকে বিয়ে করেন। তাদের ঘরে দুই সন্তান রয়েছে। একজনের বয়স ৫ বছর আরেক জন ২ বছরের। লিটন শ্বশুর বাড়িতেই স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাস করে। মাঝেমধ্যে তার বাবার পৈতৃক সম্পত্তির ঘরে এসে থাকতেন। লিটন মৃত্যুর সঠিক তদন্ত এবং জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার দাবি জানান তারা

স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার রাতে লিটন মন্ডল তার ঘরেই ছিলেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ১০ টায় লিটনের মরদেহ তার ঘরে দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন।

নিহত লিটনের শ্বশুর চান মিয়া প্রামানিক বলেন, কে তার মেয়ের জামাইকে হত্যা করেছে তার জানেন না। জামাইয়ের আত্মীয়স্বজনের মাধ্যমে এই মৃত্যু সংবাদ তারা পেয়েছেন।

নিহতের বড় ভাই মিঠু মিয়া বলেন, তার ছোট ভাই লিটনের বন্ধু সম্পর্কে তাদের চাচাতো ভাই মো. শামীম মিয়া (৩২) এই মৃত্যুর সংবাদ প্রথমে তাকে জানায়। ছোট ভাই লিটন বাড়িতে একাই ছিল। মঙ্গলবার(২৯ আগস্ট) সকালে শামীম তাদের বাড়িতে গিয়ে তার ভাইয়ের রক্তাক্ত লাশ বিছানায় দেখতে পাই।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে এলাকার কয়েকজন জানান, লিটন মন্ডল মাদক বিক্রি ও সেবনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। এলাকার কয়েকজন মাদকসেবির সঙ্গে মাঝেমধ্যেই বিবাদ লেগে থাকত। সেই জের ধরেই এই হত্যাকা- হয়ে থাকতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন।

শেরপুর থানা পুলিশের উপপরিদশক (এসআই) রামজীবন ভৌমিক নিহতের শরীরের আঘাতে সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, লাশটি উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) সজীব শাহরিন বলেন, এই হত্যার সাথে কারা জড়িত তার অনুসন্ধানের নেমেছে পুলিশ। দ্রুতই হত্যাকারীকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

এ নিয়ে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাবু কুমার সাহা বলেন, হত্যাকান্ডের খবর শুনে ঘটনাস্থলে যাই এবং মরদেহ উদ্ধা করি। তবে নিহত লিটন মন্ডল মাদক সেবন ও কারবারির সাথে জড়িত থাকায় একাধিক মামলা রয়েছে। এই মৃত্যুর ঘটনায় থানায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.