বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ

0 ১২৫
ফাইল ছবি

মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হওয়া রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রতি গভীরভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শুক্রবার (২৫ আগস্ট) রোহিঙ্গা গণহত্যার ছয় বছর পূর্তি উপলক্ষে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ কথা জানান মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের সব মানুষের জন্য ন্যায়বিচার ও জবাবদিহি এগিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও জনগণের প্রতি গভীরভাবে কৃতজ্ঞ।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারের জনগণের ‘গণতান্ত্রিক, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও শান্তিপূর্ণ’ ভবিষ্যতের আকাঙ্ক্ষায় তাদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র। আমরা ভুক্তভোগী ও বেঁচে যাওয়া মানুষের পাশে আছি।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাখাইনে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের ওপর নির্বিচারে হত্যা ও নির্যাতন শুরু করে। তখন সীমান্ত পেরিয়ে প্রায় ৭ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশের কক্সবাজারে এসে আশ্রয় নেয়। ওই দিনটিকে স্মরণে কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা ‘রোহিঙ্গা জেনোসাইড রিমেম্বার ডে’ পালন করে আসছে।

২০১৭ সাল থেকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ ও এই অঞ্চলের অন্যত্র সংকটে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য ২১০ কোটি ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে যুক্তরাষ্ট্র চলমান সহিংসতার জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.