বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকছেন মাহমুদউল্লাহ!

0 ১০০
ফাইল ছবি

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং অর্ডারে সাত নম্বর পজিশন নিয়ে অনেক কাঁটাছেড়া হয়েছে। নানা হিসেব-নিকেশ আর সমীকরণ মেলাতে গিয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে বাদ দেন টিম নির্বাচকরা। কিন্তু জাতীয় দলে যারাই সুযোগ পেয়েছেন তারাও পারফর্ম করতে রীতিমতো ব্যর্থ হয়েছেন।

শোনা যাচ্ছে, আসন্ন নিউজিল্যান্ড সিরিজ দিয়ে আবারও জাতীয় দলে ফিরছেন রিয়াদ। সিরিজটিতে ভালো করতে পারলেই আসন্ন ভারত বিশ্বকাপের টিকিট মিলবে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারের। আগামী ২১, ২৩ ও ২৬ সেপ্টেম্বর মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।

এদিকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ভক্তরা বরাবরই অভিযোগ করে থাকেন, ‘মাইনাস ফর্মুলায়’ বাদ গেছেন টাইগার এই ব্যাটার। তবে সম্প্রতি গণমাধ্যমে সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল দাবি করেছেন, নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান রিয়াদকে নাকি দলে নিতে চেয়েছিলেন।

এশিয়া কাপের দলে সাত নম্বর পজিশনে মেহেদি হাসান মিরাজ, আফিফ হোসেন কিংবা শামিম পাটওয়ারীরা সুযোগ পেলেও রান করতে পারেননি। তাই দলে না থেকেও বারবার আলোচনায় উঠে এসেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ প্রসঙ্গ। বিশেষ করে ব্যাটিং ব্যর্থতায় আরেকটা এশিয়া কাপ ভরাডুবির পর প্রশ্নটা উঠছেই।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচের পর রিয়াদ ইস্যুতে এক প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘সর্বশেষ তিন সিরিজে রিয়াদ ভাই (মাহমুদউল্লাহ) ছিলেন না। তখন আপনারা এসব কথা বলেছেন কি না, জানি না। কিন্তু এখন বলছেন। আমার মনে হয় বিষয়টা অপ্রাসঙ্গিক। তার জায়গায় দলে এসেছিল তাওহীদ হৃদয়।’

তবে আশার কথাও শুনিয়েছেন সাকিব। বলছেন সবারই এখনও সুযোগ আছে, ‘আমাদের বেশির ভাগ ক্রিকেটারই এশিয়া কাপ খেলছে। তাদের পর্যাপ্ত বিশ্রাম থাকতে হবে। যারা বিশ্বকাপের দলে নিশ্চিত, আমি মনে করি তাদের বিশ্রামের প্রয়োজন আছে। কারণ, সামনে অনেক দিন খেলা, বিশ্বকাপে নয়টি ম্যাচ, প্রস্তুতি ম্যাচ দুটি; অনেক ভ্রমণও করতে হবে।’

‘আর ইনজুরি আমরা নিতে পারব না। আমাদের বেঞ্চে এমন শক্তিশালী কেউ নেই যে কেউ ইনজুরিতে পড়লে তার জায়গায় সহজেই আরেকজনকে নিতে পারব। তাই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আমাদের সবাই যেন ফিট থাকে, সুস্থ থাকে; তাহলে যেন আমরা অ্যাভেইলেবল ক্রিকেটারদের থেকে সেরা একাদশ বাছাই করতে পারি।’-যোগ করেন সাকিব।

এদিকে চলতি মাসেই তিন ম্যাচের ওয়ানডে খেলতে বাংলাদেশে আসবে নিউজিল্যান্ড দল। বিশ্বকাপের আগে এই সিরিজেও টাইগার স্কোয়াডে চলবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। পেশীর ইনজুরিতে পড়া নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে আরো কয়েকজন নিয়মিত ক্রিকেটার থাকতে পারেন বিশ্রামে। আলোচনায় আছে মুশফিকুর রহিম এবং সাকিব আল হাসানের বিশ্রামের বিষয়ও!

নিউজিল্যান্ড সিরিজে ক্রিকেটারদের আবারও পরখ করা হবে। রিয়াদকে নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলছিলেন, ‘রিয়াদের সামনে সুযোগ আছে নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলে ফেরার। অভিজ্ঞতার একটা মূল্য আছে। নিউজিল্যান্ড সিরিজে আমাদের অনেকেই খেলবে না হয়তো, ইনজুরির কারণে। ইনজুরির ভয় আছে প্রচুর। এরপরেই যেহেতু বিশ্বকাপ, আমাদের অনেক খেলোয়াড়কেই আমরা খেলাবো না।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.