ব্যয়বহুল শহরের শীর্ষ পাঁচের দুটিই এশিয়ার

0 ২২১
আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইসিএ ইন্টারন্যাশনালের লোগো তাদের ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক প্রবাসীদের বসবাসের জন্য সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর নির্বাচিত হয়েছে। হংকংকে হটিয়ে বৈশ্বিক অর্থনীতির হাব হিসেবে খ্যাত যুক্তরাষ্ট্রের এই শহরটি শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছে। ক্রমবর্ধমান মূল্যস্ফীতি ও আবাসন খরচ বাড়ার কারণে নিউেইয়র্কের বাসিন্দাদের পকেট থেকে অতিরিক্ত অর্থ যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইসিএ ইন্টারন্যাশনালের সদ্য প্রকাশিত র‌্যাংকিংয়ের বরাতে আজ বুধবার (৭ জুন) এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

এদিকে, প্রবাসীদের বসবাসের জন্য ব্যয়বহুল শহরের যে নতুন তালিকা হয়েছে সেটির শীর্ষ পাঁচটি শহরের মধ্যে দুটিই এশিয়ার।

প্রতিবেদনে হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় গত বছর শীর্ষে থাকা হংকং নেমে গেছে দ্বিতীয় অবস্থানে। এরপরেই রয়েছে সুইজারল্যান্ডের শহর জেনেভা। তালিকায় এরপরে যথাক্রমে রয়েছে, যুক্তরাজ্যের লন্ডন, সিঙ্গাপুরের রাজধানী সিঙ্গাপুর সিটি, সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জুরিক, যুক্তরাষ্ট্রের শহর স্যান ফ্যান্সিসকো, ইসরায়েলের তেল আবিব, দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল ও জাপানের রাজধানী টোকিও।

প্রবাসীদের জন্য ব্যয়বহুল শহরের তালিকার শীর্ষ ২০টি শহরের মধ্যে পাঁচটিই চীনের। এরপরেই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বের বৃহৎ অর্থনীতির দেশটির শহর রয়েছে চারটি।

ব্যয়বহুল শহরের দিক থেকে সবচেয়ে বড় লাফ দিয়েছে সিঙ্গাপুর। ২০২২ সালে তালিকার ১৩তম নম্বরে থাকা শহরটি বছরের ব্যবধানে পৌঁছে গেছে পঞ্চম অবস্থানে। আর মূল্যস্ফীতি ব্যাপকভাবে হলেও তুরস্কের ইস্তানবুল শহরটি তালিকার ৯৫তম স্থান থেকে ১০৮ এ নেমে গেছে।

ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় শীর্ষে থাকা নিউইয়র্কের এক কাপ কফির দাম পাঁচ দশমিক ২৫ ডলার, এক লিটার পেট্রলের দাম এক দশমিক ১৫ ডলার, আধা লিটার সয়া সসের দাম পাঁচ দশমিক ৯৪ ডলার, প্রতি কেজি চিনির দাম তিন দশমিক ৯২ ডলার ও প্রতি ডজন ডিমের দাম চার দশমিক ৬০ ডলার।

অন্যদিকে, দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা হংকংয়ে এক কাপ কফির দাম পাঁচ দশমিক ৫১ ডলার, এক লিটার পেট্রলের দাম তিন দশমিক শূন্য চার ডলার, আধা লিটার সয়া সসের দাম তিন দশমিক ৩০ ডলার, প্রতি কেজি চিনির দাম তিন দশমিক ৫৬ ডলার ও প্রতি ডজন ডিমের দাম আট দশমিক ৯৯ ডলার।

বাসা ভাড়া, চলাফেরা, খাবার, জামা-কাপড়, ঘরোয়া জিনিসপত্রের দাম ও বিনোদনের খরচ হিসেব করে ইসিএ এই তালিকা প্রকাশ করে। সর্বশেষ প্রতিবেদনে ১২০টি দেশের ২০৭টি শহরের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.