ভাগনার গ্রুপ বিশ্বাসঘাতকতা করেছে : পুতিন

0 ২৪৬
ফাইল ফটো

রাশিয়ার ভাড়াটে সেনা ভাগনার গ্রুপ বিশ্বাসঘাতকতা করেছে উল্লেখ করে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, তাদের কর্মকাণ্ড দেশের জনগণের ‘পিঠে ছুরিকাঘাতের শামিল’। এখন আমাদের ঐক্য প্রয়োজন। কারণ রাশিয়া ভবিষ্যতের জন্য লড়াই করছে।

শনিবার (২৪ জুন) মস্কোতে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার।

ভাগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোজিনকে ইঙ্গিত করে পুতিন বলেন, কারও কারও উচ্চাকাঙ্ক্ষা তাদের গভীর রাষ্ট্রদ্রোহিতার দিকে নিয়ে যাচ্ছে। জড়িতদের কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে।

তিনি বলেন, এ সংকট মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আদেশ দেওয়া হয়েছে। মস্কো ও অন্যান্য কয়েকটি অঞ্চলে এখন সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চলছে।

ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, রাশিয়ার ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে। যারা রাশিয়াকে বিভক্ত করার চেষ্টা করছে তাদের কঠোর শাস্তি পেতে হবে। সমাজে বিভক্তকারীদের শাস্তি অনিবার্য।

আলজাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ভাগনার গ্রুপের যোদ্ধাদের উদ্দেশ্য করে বলেছিল যে, তারা প্রিগোঝিনের অপরাধমূলক অভিযানে জড়িত ছিল এবং একটি সশস্ত্র বিদ্রোহে অংশ নিয়েছিল।

যোদ্ধারা আত্মসমর্পণ করলে মন্ত্রণালয় সবার নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেয়। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন বলা হয়েছে, কিছু যোদ্ধা সেনাবাহিনীর অনুরোধে তাদের প্রাথমিক অবস্থানে ফিরে এসেছে।

এর আগে, শুক্রবার ভাগনার গ্রুপ জানায়, তাদের ক্যাম্পে হামলা চালিয়ে বিপুল সংখ্যক সদস্যকে হত্যা করেছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী। একইসঙ্গে প্রতিশোধ নেওয়ারও ঘোষণা দেন ভাগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোজিন। তিনি জানান, রুশ সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাদের শিক্ষা দিতে তার বাহিনী ইউক্রেন সীমান্ত পেরিয়ে রাশিয়ায় ঢুকেছে।

অন্যদিকে ভাগনার প্রধানের এমন অবস্থানের পর রাশিয়ার ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিস (এফএসবি) তার বিরুদ্ধে সশস্ত্র বিদ্রোহের অভিযোগ দিয়ে ফৌজদারি মামলা করেছে। ইয়েভগেনির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে এবং এ মামলায় তদন্তও শুরু হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.