ভিসির বাসভবনে হামলা করেছে বিএনপি-হাছান

294

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম : সরকারি চাকুরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলার ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড.হাছান মাহমুদ।
তিনি বলেন, ‘আজকে বিএনপির বিবৃতির মাধ্যমে এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, ভিসির বাসভবনে বিএনপিই হামলা করেছে। এখানে তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়।’
মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির এক সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।
আওয়ামী লীগের এই মুখপাত্র বলেন, ‘সরকারের প্রতিনিধি দল যেখানে আন্দোলনকারীদের সাথে বসেছেন, আলাপ আলোচনা করেছেন; এর পরে ভিসির বাসভবনে হামলা এটাই প্রমাণ করে যারা ইতোপূর্বে মানুষের ওপর পেট্রোল বোমা মেরে হত্যা করেছে, মানুষকে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দিয়েছে তারাই সেখানে ঢুকে এই নৈরাজ্য-সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়েছে। ভিসির বাসভবনে আগুন ধরিয়ে দিতে চেয়েছিল গ্যাসের লাইন খুলে। এগুলো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। মঙ্গল শোভাযাত্রা কার্যক্রম ব্যাহত করা, যারা মঙ্গল শোভাযাত্রা চায় না তারাই এগুলো করেছে।’
এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের প্রচার উপ-কমিটির চেয়ারম্যানএইচটি ইমাম বলেন, ‘উপাচার্যের বাসভবনে যে হামলা হয়েছে এটা অত্যন্ত নিকৃষ্টজনক। অবশ্যই ধিক্কার জানানোর মত। সংবাদপত্রের মাধ্যমে জানতে পারি যে উপাচার্যের স্ত্রী এবং সন্তানরাও নিরাপত্তাহীন হয়ে গিয়েছিল। যারা উপাচার্যের বাসভবনে হামলা চালিয়েছে তাদের যদি সৎ সাহস থাকে তাহলে তারা মুখোশ পরে যাবে কেন? অবশ্যই এর পেছনে বড় কোনও ষড়যন্ত্র আছে।’
তিনি বলেন, ‘যুক্তিসঙ্গত আন্দোলন ছাত্ররা করতেই পারে। এর প্রতি আমাদের কোনও বিরূপ মনোভাব নেই। সরকারের তো একেবারেই নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কেবিনেট মিটিং এ গতকালই নির্দেশ দিয়েছেন বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখার জন্য। এর আগে জনপ্রশাসন থেকে যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় তা নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভবনা ঠিক নয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ কোটা বা কোটা থেকে যদি পূরণ না হয় তাহলে সাধারণ থেকে পূরণ করা হবে। যেখানে সবাই আসতে পারবে। এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এখানে যদি কোনও ভুল-ভ্রান্তি থাকে তাহলে অবশ্যই সংশোধন করা হবে। সেজন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছে।’
কোটা পদ্ধতি এটি নতুন কিছু নয় দাবি করে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা বলেন, ‘পাকিস্তান আমলে সব জায়গায়ই কোটা ছিলো। যদি কোটা না থাকতো তখন আমরা সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়েও পিছিয়ে পড়ছিলাম। এটি রাখতে হয়। ভারতে কোটা পদ্ধতি চালু আছে। গতকাল ভারতের কয়েকজন নেতার সাথে কথা বলে জানতে পারলাম ভারতে কোটা ৫১ ভাগ। সেটি তারা বিভিন্নভাবে ভাগ করে থাকেন। যেমন পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী, নিম্ন শ্রেণির মানুষ, মেয়েদের জন্য এমনকি তাদের প্রতিটি রাজ্যের জন্য আলাদা আলাদা কোটা ব্যবস্থা চালু আছে।’
কোটা ব্যবস্থা অবশ্যই পরিবর্তনযোগ্য উল্লেখ করে এইচটি ইমাম বলেন, ‘পরিবর্তনশীল জগতে আমাদের বিবর্তন হচ্ছে। আমাদের শিক্ষার হার বাড়ছে, মেয়েরা শিক্ষায় অনেকে এগিয়ে এসেছে। এসব বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়েই আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গতকাল নির্দেশ দিয়েছেন যে কোটা ব্যবস্থা পরীক্ষা করে দেখার জন্য।’
নতুন করে ছাত্রদের আন্দোলন নিয়ে তিনি বলেন, ‘গতকাল ছাত্রদের প্রতিনিধিদল আমাদের মাননীয় সাধারণ সম্পাদক এবং সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সাথে দেখা করেছেন। সেখানে একটি সুন্দর সমাধান হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে এ বিষয়ে পর্যালোচনা করে নতুন কিছু করা হবে। এরপরে আর আন্দোলন করার কিছু নেই। এখানে অন্য কিছু আছে।’
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিএনপি’র প্রতিক্রিয়ায় আমার মনে হচ্ছে, ভাড়ার ঘরে কে রে আমি তো কলা খাই না। আমরা তো বিএনপির কথা বলি নাই। এই ধরনের কথা বললে, আমরা অন্যরকম মনে করবো। সরকার আন্দোলনকারীদের সাথে আছে। কিন্তু উপাচার্যের বাসভবনে আক্রমণ চারুকলার মঙ্গল শোভাযাত্রার সবকিছু নষ্ট করে দেয়া আগেকার ঘটনার সাথে যোগসূত্র আছে বলে আমরা মনে করছি।’
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন দলের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-প্রচার কমিটির সদস্য আশরাফ সিদ্দিকী বিটু ও গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।ব্রেকিংনিউজ/

x