মহাদেবপুরে অর্ধ কোটি টাকার গাছ ১৫ লক্ষ টাকায় বিক্রি

0 ৯৩

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর মহাদেবপুরে গোপন সমঝোতায় অর্ধ কোটি টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রজাতির ১ হাজার ৬শ ৭০টি গাছ মাত্র ১৫ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকায় বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু হাসানের অফিসকক্ষে এ নিলাম ডাক অনুষ্ঠিত হয়।

সূত্র জানায়, ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ছাড়াই নির্দিষ্ট কয়েকটি স্থানে কম্পিউটারে কম্পোজকৃত একটি নিলাম বিজ্ঞপ্তি সাঁটান উপজেলা প্রকৌশলী সৈকত দাশ স্বাক্ষরিত নিলাম বিজ্ঞপ্তিটি। সেখানে দেখা যায়, উপজেলার চেরাগপুর ইউনিয়নের আলীপুর মহেশপুর পুকুর হতে পদ্মপুকুর মৌজার সরদারদের সামনের কালভার্ট পর্যন্ত ও আজিপুর মৌজার ছোট তালপুকুর রাস্তার বাঁধ হতে রাবনা মৌজার কালাম চেয়ারম্যানের বাড়ীর সামনে মন্ডপ পুকুর পর্যন্ত সংযোগ সড়ক (৩ কি.মি.) এর উভয়পর্শ্বে বিভিন্ন প্রজাতির ১ হাজার ৬শ ৭০টি গাছ প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রয় করা হবে।

সেখানে ১৩ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে নিলাম ডাক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও অজ্ঞাত কারণে উপস্থিত ২২জন নিলাম ডাকে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে প্রকৃত নিলাম গ্রহিতাদের বাদ দিয়ে দুপুর ১ টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিসকক্ষে মাত্র ৫ জনকে নিলাম ডাকে অংশগ্রহণ করতে দেয়া হয়। সেখানে তারা লিয়াজোঁর মাধ্যমে অর্ধ কোটি টাকা মূল্যের গাছগুলো মাত্র ১৫ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকায় সর্বোচ্চ দরদাতা আজম উদ্দীনের নিকট বিক্রয় করে দেন। তৎক্ষণাৎ আজম গং এর কাছ থেকে বাবু নামের একজন স্থানীয় এক কাঠ ব্যবসায়ী ২৮ লক্ষ ৫০ হাজার টাকায় গাছগুলো কিনে নেন।

লাভের প্রায় ১০ লক্ষ টাকা সেখানে অবস্থানরত বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা ভাগ বাটোয়ারা করে নেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। আরো অভিযোগ রয়েছে যে, সরকারকে রাজস্ব ফাঁকি দিতে এক শ্রেণির অসাধু সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী গোপন সমঝোতায় গাছগুলোর প্রকৃত মূল্য না দেখিয়ে নিলাম ডাকের জন্য অনেক কম মূল্য দেখিয়েছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী সৈকত দাশ বলেন, গাছের মূল্য আমার জানার কথা নয়, গাছগুলোর মূল্য নির্ধারণ করেছে বন বিভাগের কর্মকর্তারা। এছাড়া সবকিছুই ঠিক ছিল।

এ বিষয়ে মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু হাসান বলেন, বাইরে কি হয়েছে সেটা আমার জানা নেই তবে গাছগুলোর সরকারি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৮৭০ টাকা। সরকারি মূল্যের চেয়ে বেশি দামেই গাছগুলো বিক্রি করা হয়েছে। তাছাড়া আমার অফিসে প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমেই গাছগুলো বিক্রয় করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.