রাজশাহীতে স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীতে মহান বিজয় দিবস উদযাপন

১৬১

রাজশাহী প্রতিনিধি: ১৬ ডিসেম্বর, আজ মহান বিজয়ের ৫০ বছর। বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক ঐতিহাসিক দিন। রাজশাহীতে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাব-গাম্ভীর্যের সাথে উদযাপিত হচ্ছে। এদিন সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জেলা পুলিশ লাইনসে ৫০ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়।

সকাল সাড়ে ৭ টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে শহিদ স্মৃতিস্তম্ভে বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেনসহ বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সকাল ৯ টায় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বর্ণাঢ্য অভিবাদন গ্রহন করেন।

প্রধান অতিথি বলেন, আমি স্মরণ করছি ইতিহাসের মহানায়ক স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে, যিনি এনে দিয়েছিলেন মহান স্বাধীনতা। তিনি বাংলাদেশকে বিশে^র দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি জাতীয় চার নেতা ও সকল শহিদদের প্রতি। যাদের আত্মত্যাগের মাধ্যমে অর্জিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা।

তিনি বলেন, আজকের এ বিজয় শাসকের বিরুদ্ধে শহিদদের, অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়ের, বঞ্চনার বিরুদ্ধে অধিকার আদায়ের এবং মিথ্যার বিরুদ্ধে সত্যের। তিনি আরো বলেন, দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছি এবং ২০৪১ সালে আমরা উন্নত দেশের মর্যাদায় পৌঁছে যাব। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে আমরা সকলে একসাথে কাজ করে যাব। আজ শপথের দিন, অঙ্গীকারের দিন, যে বিজয়টা জাতির পিতা এনে দিয়েছিল তা আমরা রক্ষা করবোই করব।

বিজয় দিবস-২০২১ উপলক্ষ্যে সরকারি-বেসরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহ, প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপসমূহে আলোকসজ্জা এবং জাতীয় পতাকাসহ বিভিন্ন পতাকা দ্বারা সজ্জিত করা হয়েছে। এদিন পার্ক, যাদুঘর বিনা টিকেটে শিশুদের পরিদর্শনের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।

Comments are closed.