রাজশাহীতে হারানো বিড়াল খুঁজে পেতে পোস্টারিং-আছে পুরস্কারও

0 ৭৬
স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী নগরীতে হারিয়ে যাওয়া এক বিড়াল ছানাকে খুঁজে পেতে পোস্টার সাঁটিয়েছেন তার মালিক তাপসী রাবেয়া (২৭)। এমনকি বিড়ালের সন্ধান দাতাকে পুরস্কৃত করার ঘোষণাও দেওয়া হয়েছে।
হারানো বিড়ালটির নাম টুলটুলি। রাজশাহী নগরীর রাজারহাতা শাহী মসজিদ এলাকা থেকে বিড়ালটি হারিয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে খুঁজে পেতে মালিক সাঁটিয়েছেন পোস্টার। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সেই পোস্টার শেয়ার করেছেন।
হারানো বিজ্ঞপ্তির পোস্টারে লেখা হয়েছে,কিছুদিন আগে আমার বিড়ালটি রাজশাহী নগরীর রাজারহাতা শাহী মসজিদ এলাকায় নতুন বাসা থেকে হারিয়ে যায়।হারানোর সময় বিড়ালের গলায় সবুজ রঙের একটি বেল্ট ছিল। বিড়ালটিকে টুলটুলি বলে ডাকলে সাড়া দেয়। বিড়ালটি শেষবার রাণীবাজারের মাদরাসা মার্কেট এলাকার একটি বাসায় দেখা যায়। কিন্তু তখন ধরা যায়নি। কোনো হৃদয়বান ব্যক্তি খোঁজ পেয়ে থাকলে নিচে দেওয়া নম্বরে যোগাযোগ করবেন। বিড়ালটির খোঁজ দিতে পারলে দুই হাজার টাকা পুরস্কৃত করা হবে।
তাপসী রাবেয়া বলেন,আগে আমরা সাগরপাড়া এলাকায় থাকতাম। সেখানে থেকেই তাকে পোষা শুরু করি।ধীরে ধীরে সে আমার খুব আপন হয়ে ওঠে। আদর করে নাম রেখেছি টুলটুলি। দুই মাস আগে আমরা রাজারহাতা এলাকায় নতুন বাসায় উঠি। তারপর সেখান থেকে কয়েক দিন আগে বিড়ালটি হারিয়ে যায়।
তিনি বলেন,আমার সন্তান সমতুল্য বিড়ালটাকে খুঁজে পেতে সাহায্য করুন সবাই। আমার বাচ্চাটা কোথায় আছে? কী খাচ্ছে এই চিন্তায় আমি দিনদিন পাগল হয়ে যাচ্ছি। আমার বাচ্চাটা ছাড়া আমি প্রচণ্ড রকমের কষ্ট পাচ্ছি। আমার বোবা বাচ্চাটাও হয়তো আমাকে পাগলের মতো খুঁজে বেড়াচ্ছে।
তিনি বলেন,আজও আমি খুঁজে এসেছি। কিন্তু কোথাও পাইনি। অনেকেই আমার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে। দেখে মনটা খারাপ হয়েছে। আমি মেন্টালি পাগল হয়ে যাচ্ছি। তাকে ছাড়া আমার বাসা কল্পনাও করা যায় না।
তাপসীর মা সানজিয়ারা বেগম লিপি বলেন,ছোটবেলা থেকেই বিড়ালটি আমাদের বাড়িতে পোষা হয়েছে। আমার মেয়ে তাকে হারিয়ে মানসিক রোগীর মতো হয়ে গেছে। বিড়াল হারানোর পর আমি তাকে সঙ্গে নিয়ে গিয়ে পোস্টার ছাপিয়ে এনেছি। অনেক ভালো বিড়াল ছিল টুলটুলি। বিড়ালের জন্য আমারও খারাপ লাগছে। ও সবসময় আমার সঙ্গে বাড়িতে খেলতো। এখন কথাগুলো মনে পড়লে খুব খারাপ লাগে। আপনারা দেখেন যদি একটু বিড়ালটা উদ্ধার করা যায়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.