রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিসংখ্যান বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু

0 11

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগের উদ্যোগে ‘ডাটা সায়েন্স এন্ড এসডিজিস: চ্যালেঞ্জ, অপরচুনিটিজ এন্ড রিয়েলিটিজ’(Data Science and SDGs: Challenges, Opportunities and Realities) শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন আজ থেকে শুরু হয়েছে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ প্রধান অতিথি হিসেবে দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন । বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে এই আয়োজনে পরিকল্পনা কমিশনের পরিসংখ্যান তথ্য বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী বিশেষ অতিথি এবং অন্যান্যদের মাঝে উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা ও উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর মো. গোলাম হোসেন, সম্মেলনের আহ্বায়ক প্রফেসর মো. ছায়েদুর রহমান, বিভাগীয় শিক্ষক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ বলেন, আজকের বিশ্বে টেকসই উন্নয়নের জন্য তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও তার গবেষণাভিত্তিক বিশ্লেষণ একান্ত প্রয়োজন। গবেষণালব্ধ ফলাফল বিভিন্ন ক্ষেত্র, যেমন শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, কৃষি, পরিবেশ সংরক্ষণ ইত্যাদি পর্যায়ে উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ ও প্রাপ্ত ফলাফল ব্যবহারে নিরন্তর গবেষণার প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবেই এই সম্মেলন আগামী দিনের জন্য দিক-নির্দেশনা দিবে বলে তাঁরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনে ২টি কি-নোট পেপার, ৩টি প্লেনারি স্পিচ, ৬টি ইনভাইটেড পেপার ও ৬টি কনট্রিবিউটেড পেপারসহ ১২২টি সাইন্টিফিক পেপার উপস্থাপিত হবে।

প্রথম পর্ব শেষে প্রধান অতিথি পরিসংখ্যান বিভাগ চত্বরে আয়োজিত এক্সিবিশন স্টলের উদ্বোধন করেন। এ আয়োজনে একটি পোস্টার প্রদর্শনীও আছে। এতে ইকোনমিক্স, জনস্বাস্থ্য, এসডিজি, সামাজিক পরিসংখ্যান, কৃষি পরিসংখ্যান, চিকিৎসা সহায়ক পরিসংখ্যান, পরিবেশগত পরিসংখ্যানসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের ভিন্ন ভিন্ন পোস্টার প্রদর্শিত হয়।

সম্মেলনে বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, নেপাল, চীন, জাপান, ফিনল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, হংকংসহ অন্যান্য কয়েকটি দেশের প্রায় ৪০০ জন গবেষক, পরিসংখ্যান ও গণিতবিদ, কম্পিউটার বিজ্ঞানী, কৃষিবিদ, চিকিৎসা বিজ্ঞানী, পরিবেশ ও জীববিজ্ঞানী এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের পেশাজীবীরা অংশ নিচ্ছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.