শীতের শেষদিকে রাবি ছাত্রলীগের কম্বল বিতরণ

0 ২৪২
রাবি প্রতিনিধি: আজ ২২শে মাঘ। প্রকৃতিতে বসন্তের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে রাজশাহী থেকে শীত অনেকটা বিদায় নিয়েছে। গরম অনুভূত হতে শুরু করেছে। এর মধ্যে শীতের শেষদিকে এসে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।
রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা দেড়টার দিকে  ‘মানবিকতায় অগ্রদূত ছাত্রলীগ’ শিরোনামে রাবি শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে কম্বল বিতরণ করেছে সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু।
কম্বল বিতরণে উদ্যোগ নেওয়ার পরপরই  সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে খোদ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে। তারা বলছেন, অসময়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করে ছাত্রলীগের সুনাম নিয়ে ‘তামাসা’ করা হচ্ছে। কেউ কেউ বলছেন, ‘লোক দেখানো’।
এর আগে, শুক্রবার প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে রাবি শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়  ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ দৃশ্যমান, লক্ষ্য এবার স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ’ প্রতিপাদ্যকে উপজীব্য করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ কর্মসূচি আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। রাবি শাখা ছাত্রলীগ যেকোন দুর্যোগ দুর্বিপাকে, সঙ্কট-সংশয়ে শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। এই তীব্র শীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শিক্ষার্থী ও অন্যান্য সাধারণ মানুষদের মাঝে উষ্ণতা ছাড়াতে পাশে থাকবে।’
অসময়ে শীতবস্ত্র বিতরণের বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী এক সিনিয়র নেতা বলেন, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ একটি গঠনতান্ত্রিক সংগঠন। অতীতে দেশের বিভিন্ন দুর্যোগ দুর্বিপাকে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে এই বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া এই ছাত্র সংগঠন। সে হিসেবে এবারের তীব্র শীতে গরীব অসহায় শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা উচিত ছিল। কিন্তু আমাদের নেতৃবৃন্দ সেটি করেনি। আর অসময়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করে ছাত্রলীগকে নিয়ে তামাসা করা হচ্ছে বলে আমি মনে করছি। এটা ‘লোক দেখানো’ ছাড়া কিছুই না।
এমন একটি মহৎ কর্মসূচী শীতের শেষে কেন এমন প্রশ্নের জবাবে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ‘শীত শেষ হলেও এখনও সম্পূর্ণভাবে শেষ হয়নি। আর কম্বল তো একবার ব্যবহারের জন্য না। এটা সংগ্রহে রাখলে সামনের শীতেও ব্যবহার করা যাবে। তাছাড়া অনেক আগে থেকেই চেষ্টা করছিলাম কর্মসূচিটি করার। কিন্তু পারিনি। একসাথে অনেকগুলো কম্বল দেওয়া হবে। সেগুলো সংগ্রহ করারও একটা ব্যাপার আছে। তাই একটু বিলম্ব হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.