সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শিক্ষক কর্তৃক ধর্ষনের শিকার

884

nilfamariআবু ছাইদ, ডোমার, নীলফামারী : রামগঞ্জ বিলাসী উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরক শিক্ষার শিক্ষক কর্তৃক উক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী  প্রাইভেট পড়তে এসে ধর্ষণের শিকার হয় উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্লাশরুমে। ঘটনাটি দ্রুত এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকার হাজার হাজার মানুষ উক্ত লম্পট শিক্ষকের বিচারের দাবিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা অবরুদ্ধ করে রেখে বিক্ষোভ করতে থাকে।  অবশেষে প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে উক্ত শিক্ষককে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে তার ন্যয় বিচার করা হবে বলে জানানো হয়। সরেজমিনে ঘটনা স্থলে গিয়ে জানা গেছে, পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার টেপ্রীগঞ্জ ইউনিয়নের রামগঞ্জ বিলাশী উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীর চার্চার শিক্ষক জামিউল হক প্রধান (৪০) উক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একটি ক্লাশরুমে  বিভিন্ন ছাত্র/ছাত্রীদের নিয়ে প্রতি দিনে প্রাইভেট পড়ায় কিন্তু গত ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ইং  সকাল ৭টার দিকে কোন ছাত্র/ছাত্রী না আসায় শুধু পার্শ¦বর্তী চর তিস্তাপাড়া গ্রামের আবু সায়েমের কন্যা সপ্তমশ্রেণি ঐ ছাত্রী  একাই প্রাইভেট পড়তে আসছিল সেই সুযোগে এই লম্পট শিক্ষক সেই ছাত্রীকে একাকী পেয়ে বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে তাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য তাকে জীবননাশের হুমকি প্রদান করে। এই কোমলমতি ছাত্রীটি এই ঘটনারপর তার অভিভাবকে জানালে বিষয়টি এলাকায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আর এই ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য একটি প্রভাশালী মহল গত ১৯ সেপ্টম্বর ২০১৬ইং রাতে  উক্ত পরিবারটিকে অর্থের বিনিময়ো আপোষ মিমাংসা করে তাদের পরিবারটিকে সরিয়ে দেয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্রকরে  ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ইং এলাকার হাজার হাজার মানুষ ন্যায় বিচারের আশায় সেই লম্পট শিক্ষের বিচারের দাবিদে রাস্তায় নেমে আসলে দেবী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবির ডোমার থানার কর্মকর্তা, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল হোসেন ঘটনাস্থলে এসে বিক্ষোভকারীদের শান্ত হওয়ার আশ্বাস দিয়ে সেই লম্পট শিক্ষককে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সাময়িক বরখাস্ত করবে ন্যায় বিচার করবেন বলে আশ্বাস দেন। এব্যাপারে উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান  শিক্ষক গোলাম আজম, সভাপতি গোলাম রহমান সাথে যোগাযোগ করা হলে দোষী ব্যক্তির উপযুক্ত শাস্তি প্রদান করবেন বলে আশ্বাস দেন।

x