সিংড়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলেন প্রতিমন্ত্রী’র শ্যালক

0 ৪৬

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলেন প্রতিমন্ত্রী পলকের শ্যালক লুৎফুল হাবিব রুবেল। রবিবার দুপুরে রুবেলের স্বাক্ষরিত প্রত্যাহার পত্রটি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল রতিফ শেখ এর কাছে পৌঁছে দেন তার প্রতিনিধি সিংড়ার তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন।

প্রত্যাহার পত্রে রুবেল জানান, তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করে মনোনয়ন পত্র জমা দেন। পরে ব্যাক্তিগত ও পারিবারিক সমস্যার কারণ দেখিয়ে তিনি নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর সুযোগ চেয়েছেন।

এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন বলেন,তিনি সিংড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী লুৎফুল হাবিব রুবেলের প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর প্রত্যাহার পত্র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ এর কাছে জমা দিয়েছেন

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ প্রত্যাহার পত্র পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, আগামিকাল প্রত্যাহারের শেষ দিন। নির্ধারিত সময়ে আগেই তিনি প্রত্যাহার পত্র জমা দিয়েছেন।

এর আগে রবিবার সকালে লুৎফুল হাবিব রুবেল নির্বাচন থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেন। তিনি এই একটি ভিডিও বার্তায় নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

ডাক, টেলিযোগাযেগ ও তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের আপন শ্যালক সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুল হাবিব রুবেল বলেন, এমপি মন্ত্রীর স্বজনরা নির্বাচন করতে পারবেন না প্রধান মন্ত্রীর এমন নির্দেশকে সম্মান জানিয়ে ও প্রতিমন্ত্রী পলকের সম্মান বজায় রাখতে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

সেই সাথে তিনি আরো বলেন, তার বিরুদ্ধে বর্তমান নির্বাচন নিয়ে যেসব ঘটনা প্রকাশ পাচ্ছে তার সাথে তিনি কোনভাবেই জড়িত নন। তার সম্মান নষ্ট করতে এবং রাজনীতিতে বিতর্কিত করতেই এমন অপচেষ্টা করা হচ্ছে। এটা একটি ষরযন্ত্র মাত্র। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই ছাত্র লীগ, যুব লীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত আছেন। তিনি সিংড়ার শেরকোল ইউনিয়ন পরিষদের দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।

এবার চেয়ারম্যান থেকে পদত্যাগ করে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। তিনি মনোয়ন পত্র জমাও দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রধান মন্ত্রীকে সম্মান জানিয়ে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সড়ে গিয়ে একজন কর্মি হিসেবে থাকতে চান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.