সিংড়ায় মাদ্রাসা ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

0 ৪৬

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ায় নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজের ২০ ঘন্টা পর মাদ্রাসা ছাত্র কাওছার আহমেদের মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের রাণীনগর ব্রীজের স্লুইচগেট এলাকার স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মিদের পাতা অবৈধ সৌঁতিজালে জড়ানো মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত কাওছার আহমেদ রাণীনগর উজানপাড়ার হাবিবুর রহমানের ছেলে ও তেলিগ্রাম দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। এদিকে মরদেহ উদ্ধারের পর ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে নিজেদের সৌঁতিজাল নিজেরাই কেটে দেন সোঁতিজাল মালিকরা।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের রাণীনগর ব্রীজের স্লুইচগেটে একটি নিষিদ্ধ সৌঁতিজাল পেতে নদী থেকে পোনা মাছ সহ সব রকমের ছোট বড় মাছ শিকারের ব্যাবসা পরিচালনা করছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী আইয়ুব আলী, হায়দার আলী, মনসুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন।

এই অবৈধ সোঁতিজাল দেওয়ার কারনে এলাকার নদীটি বিপদজনক হয়ে দাঁড়ায়। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে কাওছার নদীতে গোসল করতে যায়। গোসল করার কোন এক সময়ে নদীর ¯্রােতের টানে সৌঁতিজালে জড়িয়ে যায় সে। দীর্ঘ সময় পরেও গোসল করে ফিরে না আসলে পরিবারের লোকজন তার খোঁজাখুজি শুরু করেন।

কিন্তু অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে আবারো নদীর পানিতে খোঁজাখুজি শুরু করলে সেখানে পেতে রাখা অবৈধ সোঁতিজালে জড়ানো কাওছারের মরদেহটি উদ্ধার করে স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা আরো জানান প্রায় ১০ বছর আগে এই আইয়ুব আলীর পাতা অবৈদ সোঁতিজালে জড়িয়ে মারা যায় তার ছেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মোঃ সেলিম। এরপরও তারা এই অবৈধ সোঁতিজাল পেতে মাছ শিকার বন্ধ করেনি। এই সোঁতিজাল সহ সকল অবৈধ জাল দিয়ে মাছ শিকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন যেন কঠোর ব্যাবস্থা গ্রহণ করেন সেই দাবী এলাকাবাসীর।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত হায়দার আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কাওছার সোঁতিজালে জড়িয়ে মারা যায়নি। তাহলে ঘটনার পর আপনারা তাড়াহুরা করে সোঁতিজাল কাটলেন কেন এমন প্রশ্নেরর উত্তরে তিনি বলেন, আমি এই অবৈধ সোঁতিজালের ব্যাবসার সাথে জড়িত না।

এ বিষয়ে সিংড়া থানার দায়িতপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, গতকাল মাদ্রাসা ছাত্র নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। বৃহস্পতিবার সকালে সোঁতিজালে জড়ানো তার মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয়রা। ঘটনাটি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে আইনানু ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.