সেলফির যন্ত্রণায় রমনায় স্বাগতার ‘না’

0 740

আলমগীর,বিনোদন :
একাধারে অভিনেত্রী এবং কণ্ঠশিল্পী স্বাগতা। দুই পরিচয়েই তিনি সমান জনপ্রিয়। ছোটবেলা থেকেই বাবার হাত ধরে রমনার বটমূলে যাওয়ার অভ্যাস আছে। গানও করেছেন সেখানে। তাই শিল্পী হিসেবে উপস্থিতিও সেই ছোটবেলা থেকে। নিজের ব্যান্ড দল ‘মহাকাল’ নিয়েও মাতিয়েছেন বাঙালির বর্ষবরণের উৎসব।

‘মহাকাল’ ভেঙ্গে যাবার পর স্টেজ শোতে খুব একটা দেখা না গেলেও রেডিও টেলিভিশনে নিয়মিতই গান করছেন। পয়লা বৈশাখের উদযাপনের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাগতা জানান, ‘পয়লা বৈশাখে সব সময় সংগীতশিল্পী হিসেবে পারফর্ম করতাম। আমার কাছে বৈশাখ মানেই স্টেজ শো-তে ব্যস্ত একটি দিন। ’

তিনি আরও বলেন ‘বাবার বন্ধুরা বেশির ভাগই চারুকলাকেন্দ্রিক, সে জন্য ছোটবেলা থেকেই চারুকলায় বৈশাখের আয়োজন খুব কাছ থেকে দেখেছি। এখন কনসার্ট কিংবা টিভি এবং রেডিও শো করতে করতেই দিন চলে যায়। তবে বৈশাখের যে বাঙালিয়ানা সেটাই আমার কাছে আনন্দের।’

ছোটবেলার পয়লা বৈশাখ বেশি ভাল লাগে, না এখনকার, এই প্রশ্নের উত্তরে স্বাগতা বলেন, ‘আগের দিনগুলো ভালো ছিল এ কারণে যে, যেহেতু আগে খুব সহজে বাইরে ঘুরতে যেতে পারতাম। এখন সেটা আর করতে পারিনা’

বর্ষবরণ উদযাপনে নিজের পছন্দের খাবারের কথা জানিয়েছেন এই শিল্পী। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে কোনো খাবার বিশেষ প্রিয় বলব না। তবে মাঝেমধ্যে পান্তাভাত এমনিতেই খেতে পছন্দ করি।’

মঙ্গল শোভাযাত্রায় অং নেওয়া হয়েছে এর জবাবে স্বাগতা বলেন, ‘২০১৩ সালে মঙ্গল শোভাযাত্রায়ও অংশ নিয়েছিলাম। ওই বছর সকালে শুটিং ছিল। শুটিং শেষ করে মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নিই। তবে এখন আর যেতে পারি না। কারণ এখন সবার হাতে ফোন। সবাই গায়ের উপর ওঠে সেলফি তুলতে শুরু করে। এটা একটু বিব্রতকর।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.