৬৫ ওভার পর্যন্ত কেন বোলিংয়ে আসেননি সাকিব?

0 ২৭২
৬৬তম ওভারে বল হাতে নেন সাকিব আল হাসান। ছবি : ওয়ালটন

তিন পেসার ও দুই স্পিনার, সঙ্গে আছেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে এই হলো বাংলাদেশের বোলিং বিভাগ। আপাতদৃষ্টিতে ছয়জন হলেও বোলিং করেছেন মূলত পাঁচজন। আইরিশদের ইনিংসের ৬৫তম ওভার পর্যন্ত বলই হাতে নেননি সাকিব আল হাসান।

দলের অধিনায়ক সেই সঙ্গে স্পিন বিভাগের প্রাণভোমরা। তবু ৬৫ ওভার পর্যন্ত বল হাতে দেখা গেল না সাকিবকে। দিনের খেলা নিয়ে যতটা না আলোচনা, তারচেয়ে বেশি আলোচনা হয় অধিনায়ককে এত সময় ধরে বোলিং করতে না দেখায়। যদিও ৬৬তম ওভারে অধিনায়ক সবার কৌতূহল মেটান তিনি। তখন বোলিং করেন স্রেফ তিন ওভার। এই ছোট্ট এক স্পেল করে এক মেইডেনে দেন ৮ রান। অধিনায়কের এত ছোট্ট এক স্পেল নিয়ে প্রশ্ন সবার মনে। দিনে শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসা দলের সেরা বোলার তাইজুল ইসলামের কাছে জানতে চাওয়া হয় সাকিবের এত দেরিতে বোলিং করার প্রসঙ্গে।

জবাব তাইজুল যা বললেন, তাতে বোঝা গেল–চোট ঘটিত কোনো সমস্যা ছিল না অধিনায়কের। তাইজুল বলেছেন, ‘তেমন কোনো কারণ আমাদেরকে বলেননি (আগে বোলিংয়ে না আসার)। হয়তো আমাদেরকে দিয়েই উনার করানোর ইচ্ছে ছিল। হয়তো বা আমরা বেশি সমস্যা পড়লে উনি আসতেন।’

তাইজুল জানালেন, অধিনায়ক বোলিং না করলেও সময়মত সব পরামর্শই দিয়েছেন। তাইজুলের কথা, ‘অধিনায়ক তো সবসময়ই অবশ্যই দলের ভালো চাইবেন। যদি ভুল কিছু হয়, অবশ্যই পরামর্শ দেবেন। মাঠের পরিস্থিতি অনেক ভালো বোঝেন তিনি। যখন যেটা শেয়ার করা দরকার, তা করছিলেন। আর আমাদের ওপর আত্মবিশ্বাস ছিল বলেই তিনি আমাদেরকে দিয়ে (বোলিং) জিনিসটা করিয়েছেন।’

আইরিশদের বিপক্ষে টেস্টের প্রথম দিনটা প্রত্যাশানুযায়ী হয়নি বাংলাদেশের। প্রতিপক্ষকে ২১৪ রানে থামাতে পারলেও দিন শেষে ব্যাটিং নিয়ে অস্বস্তিতে বাংলাদেশ। শেষ বেলায় প্রথম ইনিংসে নেমে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও নাজমুল হোসেন শান্তকে হারিয়ে একপ্রকার ব্যাকফুটে থেকেই দিন শেষ করেছে সাকিব আল হাসানের দল।

Leave A Reply

Your email address will not be published.