সাকিব আল হাসানকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়ক

2,041

খেলাধুলা ডেস্ক : বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়ক হিসেবে ঘোষণা করেছে বিসিবি। শ্রীলঙ্কা সফরে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাঠে নামার কিছুক্ষণ আগে মাঠে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দেয়ার পর অধিনায়কের পদটি শুন্য হয়।
এই নিয়ে তিন ফরম্যাটে তিনজন অধিনায়ক পেলো বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটের দলপতি মুশফিকুর রহিম, ওয়ানডেতে মাশরাফি বিন মর্তুজা ও টি-টোয়েন্টিতে সাকিব আল হাসান।
সাকিব আল হাসানের নেতৃত্ব পাওয়াটা অবশ্য নতুন কোনো ঘটনা নয়। ২০০৯ এর শুরুতে বাংলাদেশের টানা কয়েকটি হার এবং দীর্ঘ রান খরার কারণে আশরাফুলের অধিনায়কত্ব প্রশ্নের সম্মুখীন হয়। তখন থেকেই বিসিবি সাকিবকে জাতীয় দলের ‘সম্ভাব্য কর্ণধার’ হিসেবে বিবেচনা করতে শুরু করে। বিসিবি অবশ্য এতো দ্রুত সাকিবের কাঁধে অধিনায়কত্বের বোঝা চাপিয়ে দেয়ার পক্ষপাতি ছিল না।
পরবর্তীতে ‘টি-২০ ওয়ার্ল্ড কাপ, ২০০৯’ এর প্রথম পর্বেই বাংলাদেশ, আয়ারল্যান্ড ও ভারতের কাছে হেরে বিদায় নেয়ার ফলে আশরাফুলের অধিনায়কত্বের বিষয়টি আবার সামনে চলে আসে। জুন, ২০০৯ এর মাশরাফিকে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়, সাকিবকে করা হয় সহ-অধিনায়ক।
কিন্তু মাশরাফির কপালে অধিনায়কত্বের স্বাদ এক ম্যাচের বেশি টিকেনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গেলে প্রথম ম্যাচেই পা পিছলে ইনজুরিতে পড়েন মাশরাফি। তারপর বাকি সময়টা সাকিবই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেন।  ২২ বছর ১১৫ দিন বয়সে বাংলাদেশের সর্বকনিষ্ঠ ও ইতিহাসের পঞ্চম কনিষ্ঠতম অধিনায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলেন তিনি। সাকিবের নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্বিতীয় টেস্টও জিতে নেয় এবং দেশের বাইরে প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বাদ পায়।
পরবর্তীতে ২০১১ সালের আগস্ট মাসে আবার নেতৃত্ব হারান এই বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার। তার কাছ থেকে অধিনায়কের নেতৃত্ব নিয়ে দেয়া হয় মুশফিকুর রহিমকে।
৬ বছর পর আবার একই দায়িত্ব ফিরে পেলেন সাকিব আল হাসান। তবে এবার শুধুই ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ভার্সন টি-টোয়েন্টির দলপতির দায়িত্ব। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে অধিনায়ক মাশরাফির ডেপুটি ছিলেন ৫৯ টি-টোয়েন্টি খেলা বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।
ঘটনার সূত্রপাত শ্রীলঙ্কা সফরের শেষ সময় থেকে অর্থাৎ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ থেকে। টি-টোয়েন্টি থেকে নেতৃত্ব ছাড়া এবং অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। তখন থেকেই সবার মনে প্রশ্ন, তাহলে পরবর্তী টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক কে হচ্ছেন। যদিও কলম্বো থাকাকালেই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন একটা ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, সাকিব আল হাসানই হতে পারেন টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের পরবর্তী অধিনায়ক।
শেষ পর্যন্ত বিসিবি সভাপতির ভবিষ্যৎ বাণীই সত্যি হয়ে দেখা দিলো। আগামী দিনগুলোতে সাকিব আল হাসান ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ভার্সন টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে নেতৃত্ব দেবেন।  ব্রেকিংনিউজ

x