নওগাঁর নিয়ামতপুরে একদিনেই ৮ জনের দেহে করোনার অস্তিত্ব!

0 25

নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুরে এই প্রথম ৮ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত পাওয়া গেছে। আক্রান্তের মধ্যে ৩ জন মহিলা এবং ৫ জন পুরুষ। উপজেলায় এই প্রথম করোনা আক্রান্ত ৮ জন। আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৫জন ঢাকার আশুলিয়া গার্মেন্টস ফেরত এবং ৩ জন নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মী।

জানা গেছে, আক্রান্ত ৮ জন রোগীদের মধ্যে ২ জন মহিলাসহ ৫ রোগী তারা নিয়ামতপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের মালিয়াখৈর ও সমসাবাজ গ্রামের। নিয়ামতপুর সদর ইউনিয়নের মালিয়াখৈল গ্রামের মহিলাসহ ২জনের মধ্যে মহিলর বয়স ৩৫ এবং পুরুষের বয়স ৩০ বছর। একই ইউনিয়নের সমসাবাজ গ্রামের মহিলাসহ ৩ জনের বয়স যথাক্রমে ২৫, ৩০,ও ২৮ বছর। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মীদের একজন মহিলাসহ বয়স যথাক্রমে ২৭, ৫২, ২৭। আক্রান্তদের মধ্যে ২ পরিবারের স্বামী স্ত্রীসহ ৪ জন ঢাকার আশুলিয়া গার্মেন্টস থেকে এবং একজন ফরিদপুর ফেরত।

মালিয়াখৈল ও সমসাবাজ গ্রামের ২ পরিবারের ৪জন স্বামী-স্ত্রী ঢাকা থেকে এসে এবং ১জন ফরিদপুর থেকে এসে কানইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদও শেষ হয়ে গেছে। গত ২ মে নমুনা সংগ্রহ করে ৫ মে সন্ধার আগে তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস কোবিড-১৯ সনাক্ত হয়।

নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ মোঃ তোফাজ্জল হোসেন বলেন, গত ২মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। ৫ মে তাদের রির্পোট পজেটিভ আসে। হাসপাতালের কর্মীরা বাইরে ফিল্ডে কাজ করে। কখন কিভাবে কার সাথে তারা মিশেছে তা খোজখবর নেওয়া হচ্ছে। যেহেতু বাইরে কাজ করে সেই কারণেও আক্রান্ত হতে পারে। রিপোর্ট পাওয়ার পরপরই উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারিয়া পেরেরা এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ মালিয়াখৈর ও সমসাবাজ গ্রামে গিয়ে তাদের খোজ খবর নেন। তাদের সাথে যারা সম্পৃক্ত তাদের বাড়ীসহ লক-ডাউন করা হয়েছে এবং স্বাস্থ্য কর্মীদের পরিবারসহ আলাদা রাখা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.