অ্যালার্জি মোকাবিলায় যা করণীয়

0 22

স্বাস্থ্য ডেস্ক: অ্যালার্জির সমস্যা অনেকেরই রয়েছে। হাঁচি থেকে শুরু করে খাবার ও ওষুধের প্রতিক্রিয়াতে এই রোগ হতে পারে। কারও ক্ষেত্রে অ্যালার্জি সামান্য অসুবিধা করে। আবার কারও ক্ষেত্রে জীবনকে দুর্বিষহ করে তোলে। অ্যালার্জির সমস্যার কারণে অনেকেরই স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিঘ্নিত হয়। যারা ভুক্তভুগী তারাই জানেন, শরীর আর মন দুটিই বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে অ্যালার্জির জ্বালায়।

আগের দিনে অনেকেরই ধারণা ছিল অ্যালার্জি একবার হলে আর সারে না। তবে বর্তমানে চিকিৎসা ব্যবস্থার যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। প্রথম দিকে ধরা পড়লে অ্যালার্জি জনিত রোগ একেবারে সারিয়ে তোলা সম্ভব।

অ্যালার্জি রোধে করণীয়

১. অ্যালার্জির সমস্যা কমাতে অনেকেই ফার্মেসিতে গিয়ে নানারকম ওষুধ কিনে খান। কিন্তু ঠিক কি কারণে আপনার অ্যালার্জি হচ্ছে তা না জেনে ওষুধ খেলে উল্টো ফল হতে পারে। এ কারণে শুরুতেই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

২. অনেকের ধারণা, ঘরে যথেষ্ট আলো-বাতাস ঢুকলে ঘর জীবানুমুক্ত থাকে। এজন্য অ্যালর্জির রোগীরাও সবসময় দরজা-জানালা খুলে রাখেন। কিন্তু এর ফলে বিভিন্ন ফুলের পরাগরেণু বা ধূলাবালি ঢুকে অ্যালার্জির সমস্যা আরও বাড়িয়ে দেয়।

৩. কোনো কোনো ফল বা সবজি খেলে অ্যালার্জির সমস্যা বেড়ে যায়। বিশেষ করে মুখে, গলায় চুলকানি, অস্বস্তি দেখা দেয়। কারও আবার এসব খাবার কাটাকাটি করলে, ধুতে গেলে বা রান্না করতে গেলেও অ্যালার্জির সমস্যা বাড়তে পারে। যাদের এ ধরনের সমস্যা আছে তাদের এসব থেকে দূরে থাকাই ভালো।

8. জুতা, কাপড়, চুলে লেগে অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী ধূলাবালি প্রতিনিয়তই ঘরে ঢোকে। আপনার পোষা প্রাণীর মাধ্যমেও অ্যালার্জি ছড়াতে পারে। এ কারণে যথাসম্ভব পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা উচিত। যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে বাইরে থেকে এসে মাথার চুল ধুয়ে ফেলাটাও জরুরি। কারণ চুলে লেগে থাকা ধূলাবালি বালিশে লাগলে সেই ধূলা লাগা বালিশে ঘুমালে অ্যালার্জির সমস্যা আরও বেড়ে যেতে পারে।

৫. অনেকেই অ্যালার্জির সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শে নাসাল স্প্রে ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু নাসাল স্প্রে ব্যবহারের ক্ষেত্রে অনেকেই নিয়ম মেনে চলেন না। নাসাল স্প্রের অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে নাকের ভেতরের অংশে এবং সাইনাসে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.