টিকা কার্যক্রমের গতি বাড়ান, নরেন্দ্র মোদিকে রাহুল গান্ধীর চিঠি

0 132
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (বাঁয়ে) এবং কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ছবি : রয়টার্স

ভারতের বর্তমান ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আজ শুক্রবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখেছেন বিরোধীদলের নেতা রাহুল গান্ধী। চিঠিতে তিনি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের যেমন তীব্র সমালোচনা করেন, তেমনই কোভিড টিকাদান কার্যক্রমের গতি বাড়ানোসহ কিছু পরামর্শও দেন এই কংগ্রেস নেতা।

মোদিকে লেখা চিঠিতে রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘বর্তমানে কোভিড পরিস্থিতি সামলাতে কেন্দ্রীয় সরকারের ব্যর্থতা গোটা ভারতকে ফের অবশ্যম্ভাবী লকডাউনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। কেন্দ্রের মোদি সরকার আগে ভাগেই করোনার বিরুদ্ধে জয় ঘোষণা করে দিয়েছিল, যার পরিণামেই দেশের আজ করোনা সংক্রমণে এই ভয়াবহ অবস্থা।’

 

চিঠিতে রাহুল বলেন, ‘করোনা সংক্রমণে গোটা দেশের যা পরিস্থিতি, তাতে দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো ভেঙে পড়ার মুখে। বর্তমানে দেশজুড়ে করোনার যে ভয়ংকর অবস্থা, তাতে আমি আপনাকে চিঠি লিখতে বাধ্য হচ্ছি। দেশবাসীর এই সংকটকালে আপনার একমাত্র প্রাধান্য দেওয়া উচিত দেশবাসীর কল্যাণের দিকে। গোটা দেশের মানুষ যে চরম কষ্টে চলছেন, সেখানে দাঁড়িয়ে মানুষের কষ্ট লাঘব করার জন্য আপনার উচিত সবকিছু করা। এ ক্ষেত্রে ভাবনা-চিন্তার কোনো অবকাশ নেই।’

 

নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশে রাহুল গান্ধী বলেন, ‘করোনাভাইরাস এতবার রূপ পাল্টে ভয়ংকর আক্রমণ করতে পারছে, এর পেছনে ভারতের নাগরিক বৈচিত্র্যও একটি কারণ। দিন যত যাচ্ছে ক্রমেই ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে সে।’

 

এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের মোদি সরকারকে রাহুল গান্ধী বেশ কয়েকটি পরামর্শও দেন। যার মধ্যে রাহুল উল্লেখ করেন, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে দেশে ভাইরাসের প্রজাতির পরিবর্তনের দিকে নজর রাখা; নতুন প্রজাতির ওপর ভাইরাসের কর্মক্ষমতা কতটা, তা পর্যবেক্ষণে রাখা; সার্বিক পরিস্থিতি বিচার করে দেশের মানুষের দ্রুত টিকাকরণ এবং ভারতের আবিষ্কার সম্পর্কে সারা পৃথিবীর মানুষকে অবগত করা।

 

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার অর্থনীতির অধ্যাপক অমর্ত্য লাহিড়ী সংবাদপত্র মিন্ট-কে বলেছেন, ‘দিনে ৪০ লাখ টিকাদানের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পর টিকার সরবরাহে ঘাটতির ফলে এখন তা দৈনিক ২৫ লাখে নেমে এসেছে। প্রতিদিন ৫০ লাখ টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রাও তেমন একটা পর্যাপ্ত নয়। তবে এটি করা গেলেও ভারতের সবাইকে দুই ডোজ টিকা দিতে এক বছরের বেশি সময় লেগে যাবে। পরিস্থিতি সত্যিই ভয়াবহ।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x