পুঠিয়ায় যৌন নিপিরনের অভিযোগে শিক্ষক আটক; শাস্তির দাবিতে মানববন্ধব

210

পুঠিয়া প্রতিনিধি : রাজশাহীর পুঠিয়ায় যৌন নিপিরনের অভিযোগে রঘুরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকে আটক করেছে পুলিশ। শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে পুঠিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। শিক্ষকের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪ টা থেকে সাড়ে ৫ টা পর্যন্ত শিবপুর হাট বাজারে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
জানা গেছে, মাজেদুর রহমান (৪২) রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়নের রঘুরামপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রহমতউল্লাহর ছেলে ও রঘুরামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, সামনে পিএসসি সমাপনী পরীক্ষা, তাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মাজেদুর রহমান আমার মেয়ে (১১) এর ভালো রেজাল্ট কারতে তার কাছে প্রাইভেট পড়তে বলে। ভালো ফলাফলের আশায় মেয়েটি কয়েক মাস থেকে তার কাছে প্রাইভেট পড়তো। সম্প্রতি দুর্গাপুজার ছুটির আগে প্রাইভেট পড়ানোর নামে ফাঁকা শ্রেণীকক্ষে মেয়েকে গত কয়েকদিন যাবত জোরপূর্বক যৌন নিপিরন করে আসছে। এরপর থেকে মেয়ে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। মেয়ের কাছে স্কুলে না যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে সে বলে, তার চাচীর কাছে যৌন নিপিরনের কথা বলে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, পরর্বতীতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিকে জানালে তারা বলে কিছু টাকা নিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে। কিন্তু আমি এর সঠিক বিচার চাই।
সহকারী শিক্ষক মাজেদুর রহমান জানান, স্কুলের একটি কাজ আমার বাবা মুক্তিযুদ্ধা রহমত আলীর অর্থায়নে ফলকে নাম দেওয়াকে কেন্দ্র করে আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ করে ফাঁসানো হয়েছে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মীর মোহাম্মদ মামুনউর রহমান জানান, বিষয়টি শুনেছি। স্কুল থেকে লিখিত অভিযোগ আসলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তার পর মঙ্গলবার রাতে অভিযুক্ত শিক্ষক মাজেদুর রহমানকে আটক করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

x