রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিকে ‘বিশ্বকাপ’ রিয়ালের

0 729

real-club-world-cupখেলাধুলা ডেস্ক : ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ একজনের উপরেই ভরসা করেছিল৷বলে দেওয়ার দরকার নেই নামটা৷ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো জ্বলে উঠুক এটাই চেয়েছিলেন জিদান৷রবিবার ইয়োকাহামার তাপমাত্রা ছিল আট ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড৷কিন্তু ইয়োকাহামা ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে আগুন জ্বালিয়ে দিলেন সিআর সেভেন ওরফে ‘সিআর নাইন’৷আগের অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার থেকে বদলে দিয়ে তিনি নিয়মিত পু্রোপুরি স্ট্রাইকারের মতো গোল করছেন বলেই অনেকে সিআর নাইন বলেই ডাকছেন তাঁকে৷এদিন রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিকে উড়ে গেল জাপানি টিম কাশিমা অ্যান্টলার্স৷অতিরিক্ত সময়ে গড়নো এই রোমাঞ্চকর ম্যাচে ৪-২ গোলে জিতল দ্বিতীয়বারের মতো ক্লাব বিশ্বকাপ জিতলইউরোপের চ্যাম্পিয়ন ক্লাব৷কিন্তু এদিন দুর্দান্ত লড়াই করল কাশিমাও৷

এদিন ম্যাচের ন’মিনিটেই এগিয়ে যায় রিয়াল৷ডি-বক্সের মাথা থেকে লুকা মদ্রিচের ভলি গোলরক্ষক হিতোশি সোগাহাতা ঠেকালে বল এসে পড়ে করিম বেঞ্জিমার কাছে।ফরাসি স্ট্রাইকার গোলের খাতা খুলতে ভুল করেননি৷এরপর ৪৪ মিনিটে শিবাসাকির অসাধারণ গোলে সমতায় ফেরে কাশিমা৷বাঁ দিক থেকে আসা ক্রসে বল পা দিয়ে নামিয়ে ভলিতে দূরের পোস্ট দিয়ে নাভাসকে ফাঁকি দেন গাকু শিবাসাকি৷এর আট মিনিট পর ফের গোল করেন তিনি৷ডি-বক্সে ভাসকেসকে ফেলে দেওয়া হলে পেনাল্টি পায় রিয়াল৷৬০ মিনিটে মাপা স্পটকিকে রিয়ালকে সমতায় ফেরান রোনাল্ডো৷নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষ হয় ২-২ সমতায়৷৯৭ মিনিটে ডি-বক্সে বেঞ্জিমার বাড়ানো বল প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ পায়ের নীচু শটে গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন রোনালদো১০৪ মিনিটে রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিক৷টনি ক্রুসের থেকে বল নিয়েই দুর্দান্ত শটে জয় নিশ্চিত করে দেন পর্তুগিজ মহাতারকা৷ক্লাব বিশ্বকাপেরর ফাইনালে এই প্রথম হ্যাটট্রিক করলেন কোনও ফুটবলার৷

 ম্যাচের আগে কাশিমা টিমের ডিফেন্ডার নাওমিচি বলেছিলেন যে, তাঁরা কুমীরের মতোই৷কুমীর যেমন জলের তলা দিয়ে গিয়ে শিকার ধরে, তাঁরাও সেই ভাবে রোনাল্ডোদের ধরবেন৷কিন্তু সিআর সেভেন একাই কুমীরের দাঁত ভেঙে দিলেন৷

ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা সবচেয়ে বেশিবার জিতেছে বার্সেলোনা, ২০০৯, ২০১১ ও ২০১৫ সালে। দ্বিতীয় শিরোপা জিতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে ব্যবধান কমালো এর আগে ২০১৪-তে জেতা রিয়াল৷ সেবার অধিনায়ক ছিলেন রোনাল্ডোই৷রোনালদোর অবশ্য তিনবার এই ট্রফি ছোঁয়া হয়ে গেল। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটের হয়ে ২০০৮ সালেও একবার শিরোপা জিতেছিলেন পর্তুগালের এই তারকা। দুই ক্লাবের হয়ে এই টুর্নামেন্ট জেতা একমাত্র ফুটবলার তিনিই। পাশাপাশি মেসি-সুয়ারেজের মতো তাঁরও ক্লাব বিশ্বকাপে পাঁচ গোল হয়ে গেল৷

Leave A Reply

Your email address will not be published.