সাপাহারে শিক্ষকের কাঠের ডালঘুটনির আঘাতে ছাত্র আহত!

0 46

সাপাহার(নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে শিক্ষকের হাতে থাকা কাঠের ডালঘুটনি দিয়ে ছাত্রের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করার এক শিক্ষক। এ বিষয়ে স্থানীয় থানাসহ বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তরে একটি অভিযোগ করেছে নির্যাতিত ছাত্রের মা রেহেনা বেগম।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার আলীনগর মুর্শিদা গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে ও মিরাপাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র একরামুল হক(১৬) গত ১৯ ফেব্রুয়ারী বুধবারে অত্র স্কুলের আয়োজনে সহপাঠীদের সাথে শিক্ষা সফরে যায়। ওইদিন রাত্রী আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে শিক্ষা সফর থেকে ফিরে আসার পথে পতœীতলা উপজেলার কাছাকাছি এসে বক্সের সাউন্ড বাড়িয়ে দিলে সাথে থাকা মিরাপাড়া দ্বি মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গোয়ালা ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নোখাই চন্দ্র বর্মন হাতে থাকা কাঠের ডালঘুটনি দিয়ে ওই ছাত্রের মাথায় সজোরে আঘাত করে। মাথায় চোট পেয়ে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় বাসের ভিতর পড়ে গেলে সহপাঠীরা তাকে সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর বাড়ীতে পৌঁছিয়ে দেয়। অভিযুক্ত শিক্ষক নোখাই চন্দ্র বর্মনের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে মিরাপাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাবুল আকতারের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জনান, ঘটনাটা তিনি শুনেছেন এবং স্থানীয় ভাবে আপোষ-মিমংসার চেষ্টা করেছেন কিন্তু ফলপ্রসু হয়নি।

উল্লেখ্য যে, ছাত্র একরামুলের মা রেহেনা বেগম বিষয়টির প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তর , মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার দপ্তর সহ স্থানীয় থানায় লিখিত ভাবে ২৩ ফেব্রুয়ারী রোববারে অভিযোগ দাখিল করেছেন।

 

সাপাহারে ৩শ’ পিস ইয়াবা সহ মাদক বিক্রেতা আটক

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে অভিযান চালিয়ে ৩শ’ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ খাইরুল ইসলাম (২২) নামে এক মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে পুলিশ।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত ৮ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর ফারুক সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপজেলার করমুডাঙ্গা চৌমুহনী এলাকায় এক বিশেষ অভিযান চালিয়ে খাইরুল ইসলাম (২২) নামে এক জনকে ৩শ’ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক করে । আটক খাইরুল উপজেলার করমুডাঙ্গা বলদিয়াঘাট গ্রামের গোলাম মাহাজনের ছেলে। এসময় তার সহযোগী চৌমুহনী এলাকার ভুট্টুর ছেলে আসাদুল (৩০) পুলিশের হাত থেকে পালিয়ে যায়।

এ ব্যপারে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃত খাইরুল ও পালাতক আসাদুলের বিরুদ্ধে থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দায়ের করা হয়েছে এবং আটককৃত খাইরুলকে সোমবার সকালে জেলা আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.