সুনামগঞ্জে বিলুপ্ত প্রজাতির বানর উদ্ধার

0 16

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে একটি লজ্জাবতী বানর উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রাম থেকে বিলুপ্ত প্রজাতির এ প্রাণিটিকে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রামে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মনজুরুল আলমের পরিত্যক্ত বাড়ির বেল গাছে মঙ্গলবার দুপুরে বানরটিকে দেখতে পায় গ্রামবাসী। তবে তারা এই প্রাণিটির সাথে পরিচিত না বলে অনেকের মনে ভয়ও কাজ করতে থাকে। পরে গ্রামবাসীর কয়েকজন মিলে কৌশলে বানরটিকে আটক করেন।

সিলেট বন বিভাগের রেঞ্জার হাসমত আলী জানান, এটি লজ্জাবতী বানর নামে পরিচিত। লজ্জাবতী বানর ছোট নিশাচর ও চুপচাপ প্রজাতির একটি প্রাণী। তাদের এই লাজুক স্বভাবের কারণেই এদের নাম লজ্জাবতী বানর। আমাদের দেশে এদের অবস্থা খুব খারাপ। তাই আইইউসিএন এদের মহাবিপন্ন প্রাণিদের তালিকায় রেখেছে। লজ্জাবতী বানর বা বাংলা লজ্জাবতী বানর অন্যান্য লজ্জাবতী বানর প্রজাতিদের থেকে অনেক বেশি বিস্তৃত হওয়া সত্ত্বেও এরা বিশ্বে সংকটাপন্ন অবস্থায় রয়েছে।

জানা যায়, দেশে লজ্জাবতী প্রজাতির যে বানর আছে তা ‘বেঙ্গল স্লো লরিস’ নামে পরিচিত। অন্যান্য লজ্জাবতী বানর প্রজাতি থেকে লজ্জাবতী বানর আকারে সব থেকে বড় হয়ে থাকে। দৈর্ঘ্যে ২৬-৩৮ সেমি পর্যন্ত হয়। এরা ওজনে ১-২ কেজি হয়। লজ্জাবতী বানরদের মাথা গোলাকার, মুখ চ্যাপ্টা, মায়াবী চোখগুলো তুলনামূলক বড়। কান ছোট ,লেজ ও ছোট। শরীর ঘন ময়লা সাদাটে-বাদামি লোমে ঢাকা। মাথার উপর একটা গাঢ় রঙের দাগ রয়েছে যা পিঠের উপর দিয়ে শরীরের পিছন পর্যন্ত গিয়েছে। শরীরের উপরের অংশ বাদামী বর্ণের। ঋতু ভেদে এদের গায়ের রং কিছুটা পরিবর্তন হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.